আইনের দৃষ্টিতে সমকামিতা

0
0

মোঃ মনিরুজ্জামান: সমকামিতাকে ইংরেজিতে বলা হয় ‘হোমোসেক্সুয়ালিটি’। সমকামিতা বলতে বোঝায় একই লিঙ্গের ব্যক্তির সাথে যৌন আচরণ করা। পুরুষ সমকামীদের বোঝাতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত শব্দটি হল ‘গে’ এবং মহিলা সমকামীদের ক্ষেত্রে ‘লেসবিয়ান’।

মানবজাতির ইতিহাসের প্রায় সমগ্র সময়কাল জুড়ে সমকামী সম্পর্ক ও আচরণ নিন্দিত হয়ে এসেছে। তবে কখনো-কখনো সামাজিক ঔদার্য ও আনুকূল্যও পরিলক্ষিত হয়েছে। এই প্রশংসা ও নিন্দা নির্ভর করেছে স্থানভেদে সমকামিতার বহিঃপ্রকাশের রূপ, সমসাময়িক বিভিন্ন ধর্মবিশ্বাসের প্রভাব ও সাংস্কৃতিক মানসিকতার উপর। তবে অধিকাংশ সমাজে এবং সরকার ব্যবস্থায় সমকামী আচরণ দণ্ডণীয় অপরাধ হিসেবে গণ্য হয়। উদাহরণস্বরূপ বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার ৬টি দেশের সংবিধানে ৩৭৭ ধারা এবং ১৯টি দেশে সমপর্যায়ের ধারা এবং সম্পূরক ধারা মোতাবেক সমকামিতা ও পশুকামিতা প্রকৃতিবিরোধী যৌনাচার হিসেবে শাস্তিযোগ্য ও দণ্ডনীয় ফৌজদারি অপরাধ।

বাংলাদেশ সংবিধানে সকল নাগরিকের জন্য সামাজিক অধিকার দেওয়ার পাশাপাশি রয়েছে নৈতিক অবক্ষয়ভিত্তিক বিধিনিষেধও। সমকামিতা বাংলাদেশের আইনে একটি দণ্ডনীয় ফৌজদারি অপরাধ। ২০১৩ সালে এক নারী সমকামীযুগলকে বিয়ের অপরাধে গ্রেফতার করে র‍্যাব। ১৯শে মে ২০১৭ সালে ঢাকার কেরানীগঞ্জে ২৭ জন সমকামী আটক করে র‌্যাব। ৪ঠা এপ্রিল ২০১৮ সালে পাবনা জেলায় দুই ছেলের বিয়ের খবর আসে, এক্ষেত্রেও পুলিশ হস্তক্ষেপ করেছিলো। আসলে বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী সমকামিতা একটি মারাত্নক অপরাধ। ৩৭৭ ধারায় বলা হয়েছে- “কোন ব্যক্তি যদি প্রকৃতির নিয়মের বিরুদ্ধে কোন পুরুষ, স্ত্রীলোক বা পশুর সাথে যৌন সঙ্গম করে, তবে সে ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে, অথবা দশ বছর পর্যন্ত যেকোন মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবে এবং তদুপরি অর্থ দণ্ডেও দণ্ডিত হবে।”

ব্যাখ্যাঃ- এই ধারায় বর্ণিত অপরাধের জন্য আবশ্যকীয় যৌন সঙ্গমের জন্য যৌনাঙ্গ প্রবেশ করাই যথেষ্ট হবে।
৩৭৭ ধারার ব্যাখ্যা অনুযায়ী, কোন পুরুষ যদি কোন পুরুষের সাথে অথবা কোনো মহিলা যদি কোন মহিলার সাথে অথবা কেউ যদি পশুর সাথে যৌনসঙ্গম করে, তাহলে সে এই ধারা অনুযায়ী শাস্তি পাবে। এমনকি কোন ব্যক্তি যদি তার স্ত্রীর সাথেও পায়ুমৈথুন করে তাহলেও এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গন্য হতে পারে। এই ধারার শাস্তির পরিমাণ দেখেই বোঝা যায় যে, এটি একটি বড় ধরনের অপরাধ। এই ধারার শাস্তি ধর্ষণের শাস্তির সমতুল্য।

২০১৯ সালে জুলাইয়ের একটি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, পৃথিবীর মোট ৭২টি দেশে এবং পাঁচটি দেশের উপ-জাতীয় আইনি বিধিমালায় সমকামিতা সরকারিভাবে অবৈধ, যার অধিকাংশই এশিয়া ও আফ্রিকাতে অবস্থিত এবং এদের মধ্যে বেশ কিছু দেশে সমকামী আচরণের অপরাধে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার বিধানও রাষ্ট্রীয়ভাবে চালু আছে।

সমকামিতা আবহমানকাল ধরে অসামাজিক হিসেবে বিবেচিত হয়েছে যার প্রধান কারণ হলো- এটি এমন একটি যৌনাচরণ যার মাধ্যমে সন্তানের জন্মদান সম্ভব নয়, ফলে মানুষের বংশরক্ষা সম্ভব নয়। এছাড়া সকল প্রধান ধর্ম সমকামী যৌনাচরণ নিষিদ্ধ করেছে। বর্তমান সমাজেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সমকামী যৌনাচরণ একপ্রকার যৌনবিকৃতি হিসেবে সাধারণভাবে পরিগণিত। তবে ১৯৭৩ সালে পাশ্চাত্য মনস্তাত্ত্বিকরা ‘সমকাম প্রবণতাকে’ মনোবিকলনের তালিকা থেকে বাদ দেন। ১৯৭৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক মনস্তত্ত্ব ফেডারেশন ‘সমকাম প্রবণতাকে’ স্বাভাবিক বলে দাবি করে।

তবে পাশ্চাত্য ও উন্নত কিছু দেশ ছাড়া পৃথিবীর প্রায় সকল দেশে সমকামী যৌনাচারণের প্রতি সাধারণ মানুষের বৈরীভাব বহাল আছে। অধিকাংশ সমাজে সমকামী যৌনাচরণ একটি অস্বাভাবিক ও নেতিবাচক প্রবৃত্তি হিসেবে লজ্জার ব্যাপার এবং ধিক্কারযোগ্য। ধর্ম ও আইনের বিধান এবং সামাজিক অনুশাসনের কারণে কার্যকলাপ তথা সমকামী যৌনসঙ্গম বিশ্বের অধিকাংশ স্থানেই একটি অবৈধ ও গুপ্ত আচরণ হিসেবেই সংঘটিত হয়।

সমকামিতা মূলত একটি বিকৃত যৌনাচার। একটি স্বাস্থ্যকর যৌন জীবনের জন্য আল্লাহ তায়ালা বিবাহের মতো একটি পবিত্র বন্ধনকে আমাদের জন্য প্রেসক্রাইব করেছেন। বিবাহ বহির্ভূত সকল ধরনের যৌন সম্পর্ক ইসলামে নিষিদ্ধ। নারী পুরুষের এই পবিত্র বন্ধনে আছে মানসিক প্রশান্তি, সামাজিক দায়বদ্ধতা ও নতুন প্রজন্ম তৈরি করার মাধ্যম। তাই, কোন মানুষ কখনো সমকামী হতে পারেনা এমনকি সমকামীদের পক্ষে কথাও বলতে পারে না।

এই সময়ে বাংলাদেশে যারা সমকামিতার পক্ষে সাফাই গাইছেন বা এটাকে প্রোমোট করার চেষ্টা করছেন, তাদের কথা ও কাজের যৌক্তিক সমালোচনা এবং প্রতিবাদের পাশাপাশি আমাদের উচিত এসবের সামাজিক ও নৈতিক ক্ষতিগুলোর ব্যাপারে মানুষকে সচেতন করা। কিন্তু কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ, অকথ্য-অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করা, হুমকি দেয়া, হেইটরেড ছড়ানো মোটেও উচিত নয়। ইসলাম আমাদেরকে এটা শেখায়নি মন্দের প্রতিবাদ মন্দ দিয়ে নয়, বরং ভালো দিয়ে করতে হয়।

লেখক: শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ;
মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

প্রতিউত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন